সর্বশেষ সংবাদ

কুমুদিনীর অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

কুমুদিনীর অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ
মির্জাপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস

(টাঙ্গাইল): টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কুমুদিনী উইমেন্স মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। প্রথমবর্ষের এক শিক্ষার্থীকে অধ্যক্ষ আব্দুল হালিম যৌন হয়রানি করেন বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির প্রথমবর্ষের ওই শিক্ষার্থী গত জানুয়ারি মাসে ভর্তি হন। এরপর থেকেই অধ্যক্ষ নানাভাবে তাকে যৌন হয়রানির চেষ্টা করেন। তিনি নানা অজুহাতে মেডিকেল কলেজের পিয়ন নয়নকে দিয়ে ছাত্রীকে অধ্যক্ষের কক্ষে ডেকে অশালীন কথাবার্তা বলে কুপ্রস্তাব দেন।

গত মাসের মাঝামাঝি ওই শিক্ষার্থীর কার্ড পরীক্ষা (মেডিকেল পরীক্ষা) ছিল। কিন্তু যৌন হয়রানির কারণে তিনি পরীক্ষা না দিয়ে বাড়ি চলে যান। গত মাসের ২৪ তারিখে সাপ্লিমেন্টারি কার্ড পরীক্ষায় (২৭ মার্চ) অংশ নিতে লিখিত আবেদন করে ছাত্রীনিবাসে থেকেই পরীক্ষায় অংশ নেন। কিন্তু হঠাৎ করে তিনি পুনরায় বাড়ি চলে যান। গত ৩ ও ৪ এপ্রিলও তিনি পরীক্ষায় অনুপস্থিত থাকেন। গত মঙ্গলবার তিনি তাঁর মায়ের সঙ্গে কুমুদিনী চত্বরে আসেন। সেখানে তার মা কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালকের কাছে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন।

গত শনি ও রবিবার কুমুদিনী চত্বরে গিয়ে বিষয়টি নিয়ে কানাঘুষা শোনা গেছে। মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবকেরাও কিছু বলেননি। তবে বিষয়টি নিয়ে গত শনিবার ঢাকায় কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভা হয়েছে বলে জানা গেছে।

মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এদিকে অধ্যক্ষ আব্দুল হালিম যৌন হয়রানির অভিযোগ অস্বীকার করে ঢাকাটাইমসকে বলেন, মেয়েটি অসুস্থ। একজন চিকিৎসক হিসেবে আমি তাকে চিকিৎসা করেছি। তবে কী কারণে সে এ ধরনের অভিযোগ করছে তা আমার বোধগম্য নয়।

– See more at: http://www.dhakatimes24.com/2016/04/10/108876#sthash.ClEVTX0L.dpuf

 

 



Related posts

মন্তব্য করুন