সর্বশেষ সংবাদ

যে ৫টি খাবার প্রাকৃতিক উপায়ে গর্ভপাত হতে সাহায্য করে

গর্ভধারণ একটি সুন্দর অভিজ্ঞতা সব মেয়ের কাছেই। কিন্তু তা তখনই সুন্দর যদি সেটি পরিকল্পিতভাবে হয়। বেশ কিছু খাবার রয়েছে যা নিয়মিত খেলে গর্ভধারণের সম্ভাবনা অনেকখানি কমিয়ে দেওয়া যায়।

‘প্রেগনেন্সি বাই চয়েস, নট বাই চান্স’। ভারতে গর্ভপাত আইনসম্মত কিন্তু কিছু শর্তাবলী প্রযোজ্য। প্রথমত, আসন্ন সন্তান হতে চলেছে মেয়ে তা জানতে পেরে গর্ভপাত এবং গর্ভপাতের চেষ্টা দু’টিই ক্রিমিনাল অফেন্স। দ্বিতীয়ত, গর্ভপাত করাতে হয় ২০ সপ্তাহের মধ্যে। ২০ সপ্তাহ পেরিয়ে যাওয়ার পরে গর্ভপাত বেআইনি।

গর্ভপাত সব সময়েই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে তবেই করা উচিত। কিন্তু কয়েকটি খাবার এমন রয়েছে যা খেলে প্রথম ট্রাইমেস্টারে বা ৪ থেকে ১২ সপ্তাহের মধ্যে গর্ভপাত হয়ে যেতে পারে। গর্ভাবস্থায় এই খাবারগুলি তাই কখনওই খাওয়া উচিত নয়—

কাঁচা পেঁপে

প্রচুর পরিমাণে কাঁচা পেঁপে খেলে গর্ভপাত হতে পারে। কাঁচা পেঁপের মধ্যে রয়েছে প্যাপেইন যা সার্ভিক্সকে আলগা করে ও পিরিয়ডস হতে সাহায্য করে।

আনারস

পেঁপের মতোই আনারসে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন সি এবং এক বিশেষ ধরনের এনজাইম যা গর্ভপাত ঘটাতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় আনারস একেবারেই খাওয়া উচিত নয়।

তিল

ভাজা সাদা তিলের নাড়ু অনেকেরই পছন্দ কিন্তু এই খাবারটি গর্ভাবস্থার একদম প্রথমদিকে খেলে গর্ভপাত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

টকজাতীয় ফল

অ্যাসকরবিক অ্যাসিড গর্ভপাত ঘটায়। তাই যে কোনও টকজাতীয় ফল প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে খেলে দু’তিন সপ্তাহের মধ্যে গর্ভপাত হয়ে যেতে পারে।

পার্সলে পাতা

এই উপকরণটি ইউটেরাসের সঙ্কোচন ঘটায় এবং পাশাপাশি সার্ভিক্সকে আলগা করে। এই দু’টি প্রক্রিয়াই গর্ভপাতে হতে সাহায্য করে। পার্সলের সঙ্গে ভিটামিন সি খেলে গর্ভপাতের সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যায়।



Related posts

মন্তব্য করুন