শ্রীনগরে প্রসূতির মৃত্যু, দুই চিকিৎসকসহ আটক ৫

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতি মায়ের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে স্বজনদের বিক্ষোভের মুখে দুই চিকিৎসকসহ পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শ্রীনগরে প্রসূতির মৃত্যু, দুই চিকিৎসকসহ আটক ৫

শনিবার সন্ধ্যায় শ্রীনগেরর ঝুমুর সিনেমা হল সংলগ্ন রাণী জেনারেল হাসপাতালে প্রসূতি মা মারা যান।

পরে তার স্বজনদের অব্যাহত বিক্ষোভের মুখে রাত ১০টায় হাসপাতালের একটি কক্ষ থেকে দুই চিকিৎসককে আটক করা হয়।

প্রসূতি মায়ের নাম রোজিনা বেগম (২২)। তিনি লৌহজং উপজেলার চন্দ্রের বাড়ি এলাকার শহিদুল ইসলামের স্ত্রী।

রোজিনার স্বজনরা জানান, শনিবার সকালে তার প্রসব ব্যথা উঠলে তাকে রাণী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বেলা ১১টার দিকে রোজিনাকে হাসপাতালে নেয়া হলেও ঢাকা থেকে ডাক্তার আসার কথা বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সময় ক্ষেপণ করে বলে অভিযোগ স্বজনদের।

তারা জানান, বিকাল চারটার দিকে রোজিনার সিজারিয়ান অপারেশন করেন ডা. তানবীর নাহার শামীমা। এতে রোজিনা একটি পুত্র সন্তান প্রসব করেন।

কিন্তু দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও রোজিনার জ্ঞান ফিরছিল না। অন্যদিকে স্বজনদেরও তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে দেয়া হচ্ছিল না।

স্বজনরা জানান, সন্ধ্যা ছয়টার দিকে রোজিনার অবস্থা গুরুতর বলে তাকে ঢাকা পাঠানোর জন্য অ্যাম্বুল্যান্সে তোলা হয়। এসময় রোজিনার স্বামী তার শরীর স্পর্শ করে দেখতে পান তিনি মারা গেছেন।

ভুল চিকিৎসায় রোজিনার মৃত্যু হয়েছে অভিযোগ করে হাসপাতালে বিক্ষোভ করার চেষ্টা করলে শাহ নেওয়াজ নামে এক ব্যক্তি স্বজনদের হাসপাতাল ছেড়ে যেতে হুমকি দেন বলে অভিযোগ করেন তারা।

পরে রোজিনার স্বজনরা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার হওয়ার আগেই হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হারুন অর রশিদ,ম্যানেজার শ্যাম বাবু সহ কর্মকর্তারা পালিয়ে যায়।

পরে পুলিশ হাসপাতালের অন্যতম মালিক এবং শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্যাথলজি বিভাগের টেকনিশিয়ান আবুল কালাম আজাদ, নার্স শিউলী ও ঝর্ণাকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

কিন্তু রোগীর স্বজনরা চিকিৎসদের গ্রেফতারের দাবিতে অনড় থেকে বিক্ষোভ অব্যাহত রাখে। তারা অভিযোগ করেন অভিযুক্ত চিকিৎসকরা হাসপাতালের একটি কক্ষে লুকিয়ে থাকলেও তাদের গ্রেফতার করা হচ্ছে না।

পরে রাত দশটার দিকে হাসপাতালের প্রায় অর্ধ শতাধিক কক্ষের তালা ভেঙ্গে চার তলার ৪১১ নম্বর কক্ষ থেকে গাইনী সার্জন ডা. তানবীর নাহার শামীমা ও এনেসথেসিয়া চিকিৎসক বাশার মো. আব্দুস সালামকে আটক করে।

সর্বশেষ রাত সোয়া ১১টার দিকে ভুল চিকিৎসায় রোগি রোজিনার মত্যৃর অভিযোগে শ্রীনগর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

 

13211060_1285821511446546_688551162_o-png



Related posts

মন্তব্য করুন