সর্বশেষ সংবাদ

নবাবগঞ্জে সফল কৃষাণী গৃহবধূ মায়া রাণী বাউল

15826532_1796678247261922_4237951852827185038_n 

আলীনুর ইসলাম মিশু

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলা একটি কৃষি নির্ভর এলাকা। এ যেন নব সবুজের এক নুতন উদ্যানে ঘেরা ছবি। ১৪ টি ইউনিয়নের ৪২টি কৃষি ব্লক নিয়ে কৃষি অঞ্চল গঠিত এই উপজেলায়। উপজেলা সদর থেকে মাত্র ৪ কিঃমিঃ দূরে অবস্থিত বাহ্রা ইউনিয়নের কান্দামাত্রা গ্রাম।

নবাবগঞ্জে সফল কৃষাণী গৃহবধূ মায়া রাণী বাউল

সেই গ্রামের গৃহবধু মায়া রানী বাউল স্বামী ডাঃ জগদিস চন্দ্র বাউলের সংসারের সকল কাজ করেও কৃষি কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন এক যুগেরও বেশি সময় ধরে। এর মাঝে গড়িয়ে গেছে জীবনের সুখ ও দুঃখের অসংখ্য দিন গুলো। তার পরও হাল ছাড়েনি বাড়িতে ১৫ টি গাভি কিনে গড়ে তুলেছেন একটি ডেইরি ফ্রাম- যা থেকে খরচ বাদ দিয়ে মাসিক আয় বর্তমানে প্রায় ৭০ হাজার টাকা প্রতি বছরের ন্যায় এবারও মায়া রাণী বাউল প্রায় ১০ বিঘা জমিতে বেগুন, সিম, পেঁপে,টমেটো, আলুসহ বিভিন্ন সবজির চাষ করেছেন। এ পর্যন্ত্ম আয় হয়েছে প্রায় ৩ লাখ টাকা। ৪ বিঘা জমিতে বুনেছেন শরিষা তার এ সফলতায় পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেন উপসহকারী কৃষি-কর্মকর্তা ওয়ালী উল্লাহ ও তার স্বামী জগদিস চন্দ্র বাউল। নিজের বাড়িতে তিনি রোপণ করেছেন ফলজ ও ঔষধি বৃক্ষ যার ফলে এলাকার সাধারন মানুষের কাছে পরোপকারী বৃক্ষ প্রেমিক হিসেবে পরিচিত লাভ করেছেন। মায়া রাণী বাউলের সাফল্য দেখে উপজেলার অনেক মহিলা এখন কৃষি কাজে এগিয়ে আসছেন। তার উৎপাদিত শাকসবজি রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় যাচ্ছে বলেও জানা যায়। এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলার কৃষি-কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. শহীদুল আমীন জানান, কৃষকের কল্যানে বর্তমান সরকার কাজ করছে। দারিদ্রতার বিরুদ্ধে জয়ী হতে অনান্য নারীদের বলবো মায়া রাণীর মতো এগিয়ে আসুন সাফল্য আসবেই।



Related posts

মন্তব্য করুন