সর্বশেষ সংবাদ

অজানা নবাবগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস নতুন প্রজন্ম জানে কি ?

কিভাবে একটি ভালো ডিএসএলআর ক্যামেরা কিনবেন

নিজস্ব প্রতিবেদক:২৪খবর.কমঃ

অামি অর্থ চাই না স্বীকৃতি ও মর্যাদা চাই…. এই প্রথম প্রকাশ করলাম অামার পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সাওকাত হোসেন অাঙ্গুর (অাঙ্গুর কমান্ডার) ১৯৭১ সালে গালিমপুর ইউনিয়ন বর্তমানে গোবিন্দপুর ব্রীজ সংলগ্ন সেদিন রাজাকারদের সহায়তায় পাক- বাহিনী লষ্ণ নিয়ে যখন ডুকে পড়েছিলো অত্র এলাকা গোপন সংবাদ পেয়ে সাওকাত হোসেন অাঙ্গুর (কমান্ডার) কমান্ডো অভিযান চালিয়ে পাক হানাদার বাহিনীকে প্রতিহত করেছিলো।

 অজানা নবাবগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধাদের ইতিহাস নতুন প্রজন্ম জানে কি ?

শুধু তাই নয়, মুক্তিযোদ্ধাদের নেতৃত্ব দিয়েছিলো। পুরো গালিমপুর ইউনিয়নকে হানাদার মুক্ত করেছিলো। বর্তমান প্রজন্মের কাছে বিশেষ অনুরোধ গালিমপুর ব্রীজ সংলগ্ন পাশে যেখানে মুক্তিযোদ্ধা ও পাক বাহিনীর যে দীর্ঘ সময় সংঘর্ষ হয়েছিলো সেখানে মুক্তিযোদ্ধা ভিত্তিক স্মৃতিফলক করা হউক সাওকাত হোসেন অাঙ্গুর কমান্ডার এর নামে। অামি এক মাত্র পুত্র সন্তান মোর্শেদদুল হাসান রতন (প্রবাসী) । অামার বাবা একজন “মুক্তিযোদ্ধা” হিসেবে স্বীকৃতিরর জন্য প্রার্থনা করছি। সাওকত হোসেন অাঙ্গুর কমান্ডারর এর একমাত্র পুত্র রতন যখন গর্ভে অাসে। ১৯৭৪ সালে ঘাতকরা অজ্ঞাত লোকের মাধ্যমে অাঙ্গুর কমান্ডারকে ডেকে নিয়ে অাগলা বাজার, বর্তমানে কাচা বাজারে ব্রাশফায়ার করে নির্মমভাবে হত্যা করে কিছু বিপদগামী লোক। তার পুত্র রতন যখন ভূমিষ্ঠ হয়, কয়েক বছর পর যখন বাবা ডাকার সক্ষম হয় তখন সে তার বাবাকে দেখতে পারে নি, বাবা বলে ডাকতে পারেন নি। সুঠাম দেহের অধিকারী এই মুক্তিযোদ্ধা ৭১’ রণাঙ্গনে তার নেতৃত্বে সংগঠিত হয়েছিলো অাগলা, অান্ধারকোঠা, সহ গালিমপুরের, মুক্তিযোদ্ধারা। তার নেতৃত্বেই গালিমপুর পাক সেনাদের লঞ্চে অাক্রমন হয়েছিলো। এবং সেই অাক্রমনে অনেক পাক সেনা নিহত হয়। তার সন্তান মোর্শেদুল হাসান রতন জানান, জীবন দশায় এই বীর মুক্তিযোদ্ধা কোন স্বীকৃতি পাননি, এমনকি মুক্তিযোদ্ধা তালিকায় তার নাম ও নেই এবং কেউ কোন খোজ নেওয়ার প্রয়োজন মনে করেন নি। শুয়ে অাছে বীর মুক্তিযোদ্ধা অান্ধারকোঠা তার পিত্তালয় পারিবারিক কবরস্থানে। অার তার একমাত্র পুত্র ইটালী প্রবাসী দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ দুিট কিডনী নষ্ট। অসুস্থ এই মুক্তিযোদ্ধার সন্তান তার বাবার স্বীকৃতির জন্য সকলের নিকট সহযোগিতা দাবী জানিয়েছে। জানা যায়, ছেলে বেলা থেকে নিজ পিত্তালয় অান্ধারকোঠা গ্রামে বসবাস করত



Related posts

মন্তব্য করুন