সর্বশেষ সংবাদ

দোহারের মৈনটঘাট প্রশাসনের সু-দৃষ্টি পেলে নাব্যতাসহ সংকট দূর সম্ভব

13217491_878237145620610_5145439088201395157_o 

আবুল হাশেম ফকির।

দোহার উপজেলার মৈনটঘাট থেকে ফরিদপুর সদরসহ চরভদ্রাশন থানা এলাকায় নৌপথে নির্ভরযোগ্য দীর্ঘদিনের চলাচলের ঘাট।সম্প্রতি ঘাটটির উপর দিয়ে চলাচলকারী যাত্রীরা নদীটিতে নাব্যতা সংকটের কারনে ৩০ মিনিটের পথ যাত্রার সময় লাগে প্রায় ২ ঘন্টা।এতে পদ্মা নদী পাড়ে মিনি কক্সবাজার খ্যাত মৈনটঘাট এলাকাটি দেথতে আসা ভ্রমন পিপাসুরা নদীর চির-চায়িত সৌন্দর্য উপভোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

দোহারের মৈনটঘাট প্রশাসনের সু-দৃষ্টি পেলে নাব্যতাসহ সংকট দূর সম্ভব

সরেজমিনে দেখা যায় যে,প্রতিদিন ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ২টি কোম্পানীর বাস গনপরিবহনে চেপে আসেন ফরিদপুরের যাত্রীরা দোহার উপজেলার মৈনটঘাটে।এখান থেকে লঞ্চ,স্প্রীডবোট ও ট্রলারযোগে যাত্রীরা যেতে সময় লাগে ৩০ মিনিটের পথ প্রায় ২ ঘন্টা। ঘাট ইজারাদার ও যাত্রীদের সঙ্গে আলাপকালে জানা যায়,দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে এ সমস্যা ব্যাপকহারে দেখা দিয়েছে।এভাবে নদীর মোহনা বিভিন্ন দিকে মোড় নিয়ে চলার ফলে পদ্মা পাড়ের হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে নদী ভাঙ্গনের কারনে। প্রতিবছরই বর্ষাকাল আসলে নদীর ভাঙ্গন তীব্র রুপ ধারন করে।বর্তমানে নদীর গভীরতা কম থাকায় বিপাকে পড়েছে এইপথ দিয়ে চলাচলকারী প্রায় লক্ষাধিক নদী পথের যাত্রীরা।যাত্রীরা ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের উদাষীনতাকে দায়ী করেছেন।এ সময়ে তারা বলেন মৈনট লঞ্চ ঘাট থেকে ফরিদপুর সদরসহ চরভদ্রাসন থানা এলাকায় যেতে ভাড়া দিতে হয় ট্রলারে জন প্রতি ৬০ টাকা এবং স্পীড বোটে জন প্রতি ১৬০ টাকা খরচ করতে হয়।এই নিয়ে যাত্রীদের মাঝে এক ধরনের চাপা ক্ষোভ রয়েছে। অচিরে যদি যাত্রী দূর্ভোগ হ্রাস করা না যায় তাহলে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে ঘাট ইজারাদার কর্তৃপক্ষ। এ বিষয়ে ইজারাদার প্রতিষ্ঠানের সদস্য মো.কাশেম মেম্বার ও ঘাট ইজারাদার সভাপতি ফারুক উজ্জামান পেসকার বলেন যাত্রীদের অভিযোগ সঠিক নয়।তবে নদীর নাব্যতা সংকটের কথা তিনি স্বীকার করে বলেন এটি আমাদের পক্ষে একা সম্ভব নয় যদি প্রশাসন কোন প্রকার পদক্ষেপ নেয় তাহলে সমস্যা সমাধান করা সম্ভব এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম আল-আমীন বলেন, বিষয়টিতে চরভদ্রাসন থানাসহ ফরিদপুর জেলা ডিসি বরাবরে একটি প্রতিবেদন সহ আবেদন করা হয়েছে। ফরিদপুর জেলা ডিসি মহোদয় ব্যাপারটি ভালোভাবে জেনেছেন । বর্তমান পদ্মা নদীর সিমানা পর্যক্ষেন করে সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হবে ।



Related posts

মন্তব্য করুন