সর্বশেষ সংবাদ

“দোহারে রক্তের রমরমা ব্যাবসা, রোগিকে জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা

আয়েশা সিদ্দিকীঃ

ঢাকার দোহার নবাবগঞ্জে প্রতিদিনই রক্তের অভাবে রোগী ভর্তি হতে দেখা যায়। আর এরই সুযোগ নিয়ে একটি চক্র রোগীদের জিম্মি করে রোগীর আত্মিয়ের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা। আর এই কুচক্র দলটির মুল হোতা আমল বাবু ও শেখ সম্রাট নামে দোহরেরই দুইজন স্থানিয় লোক।

"দোহারে রক্তের রমরমা ব্যাবসা, রোগিকে জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা

তিনি এই চক্রটাকে পরিচালনা করেন এবং একটি সফল গ্রুপ “দোহার ব্লাড ব্যাংকের” পরিচয়ে তারা তাদের এ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে দোহার ব্লাড ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা তৌহিদ রাসেলের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আমল, সম্রাট নামে তাদের সংগঠনে কোন কর্মী নেই, আমল আমাদের গ্রুপের সুনাম নষ্ট করে এবং আমাদের নাম ভাঙ্গিয়ে রোগীর কাছ থেকে টাকা নিচ্ছে এবং প্রতি মাসে প্রায় ৫০/৬০হাজার টাকা রোগীকে জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে। আমাদের গ্রুপের মেম্বাররা নিজের টাকা খরচ করে রোগীকে রক্ত দিয়ে আসে একটা পয়সাও তারা নেয় না সেখানে আমল আমাদের সুনাম, গ্রুপের ভাবমমূর্তি নষ্ট করার লক্ষে প্রতারনার জাল ফেলেছে। এইতো গত তিন দিন আগের কথা দোহারের এক রোগী ঢাকায় ভর্তি ছিল ১ দিনে ১০ ব্যাগ রক্তের যোগান দিয়েছে দোহার ব্লাড ব্যাংকের সদস্যরা একটি টাকাও নেয়নি কেউ গাড়ি ভারাও নয়। তিনি সকলকে সাবধান হতে বলে এবং রক্ত দেবার নাম করে কেউ টাকা চাইলে টাকা দিতে বারন করেন।

Image may contain: text

 তৎক্ষনাত থানায় অভিযোগ করতে বলেন। গ্রুপটির অন্যতম কার্যকরি সদস্য মোয়াজ বলেন, আমল কেন আমাদের ক্ষতি চাইছে তা আাদের জানা নেই কিন্তু সে আমাদের কেউ নয় আমি এ বিষয়ে সকলকে সচেতন হবার আহ্বান জানাই। “রক্ত হলো স্রষ্টার দান বাঁচাতে পারে একটি প্রান”এই স্লোগানকে সামনে রেখে ২০১৪ সালের ৪ঠা জুন “দোহার ব্লাড ব্যাংক “নামে একটি সংগঠন পথ চলা শুরু করেন! হাটি হাটি পা পা করে আজ প্রায় তিনটি বছরের দিকে দোহার ব্লাড ব্যাংক।দোহার নবাবগঞ্জ এর কিছু অদম্য যুবকের উদ্দোগে তারা এত বড় উদ্দোগ গ্রহন করেন। আজ প্রযন্ত কত অসহায় রোগীকে রক্ত দান করেছেন এই সংগঠনটি তার হিসাব নেই। শুধু রক্তই নয় অসহায় গরিব কোন ব্যাক্তি যদি বিপদে পরে দোহার ব্লাড ব্যাংকের সরনাপন্ন হয় তবে যে যেভাবে পারে তাকে সাহায্য করে। দোহার ব্লাড ব্যাংকের প্রতিটি সদস্য সকলের কাছে দোয়া পার্থী।দোহার ব্লাড ব্যাংকের নেটওয়ার্ক এখন শুধু দোহার নবাবগঞ্জেই আবদ্ধ নয় ছরিয়ে ছিটিয়ে আছে বাংলাদেশের কয়েকটি জায়গায়। দোহার ব্লাড ব্যাংক এখন শুধুই মিলন মেলা।

Save



Related posts

মন্তব্য করুন