দোহারের মিনি কক্সবাজার হুমকির মুখে

No automatic alt text available.
আবুল হাসেম ফকির
ঢাকার দোহার উপজেলার মিনি কক্সবাজার নামে খ্যাত মৈনটঘাট এখন ভাঙনের মুখে। প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমের শুরুতে ভাঙন দেখা দেয় মৈনট এলাকার কয়েক কিলোমিটার জায়গা।
দোহারের মিনি কক্সবাজার হুমকির মুখে
এবারো বর্ষা মৌসুমের শুরুতেই ভাঙ্গন শুরু হয়ে গেছে।ধারানা করা হচ্ছে বর্ষা পূর্ণাতা পেলে ব্যাপক আকার ধারন করতে পারে। তবে প্রশাসনের উদ্যোগে তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় এ বছর ভাঙনের হুমকিতে পড়তে পারে এই মিনি কক্সবাজার । গত কয়েকদিন যাবৎ মৈনট এলাকার প্রায় এক কিলোমিটার জায়গা জুড়ে ভাঙন দেখা দেওয়ায় আশপাশের মানুষ আতঙ্কে রয়েছে। স্থানীয়দের ভাষ্যমতে,প্রতিবছর নেতাকর্মীরা বড় বড় আশ্বাস দিয়ে থাকলেও মৈনট এলাকার সৌন্দর্য রক্ষায় তেমন কোন ভূমিকা পালন করতে দেখা যায় না। গতবছর প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারী খাত উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান মৈনট এলাকা পরিদর্শনে আসেন।সাথে বিদেশী এদাতা দেশের বেশকয়েকজন সদস্য যারা মিনি কক্সবাজারকে ইকোনোমিক জোন করার প্রস্তাবনা নিয়ে আসেন।শুরু হয় জমি সংগ্রহের কাজ আমিন দিয়ে সিমানা নির্ধারনের মত কাজ চলে।যা কেবল স্বপ্ন দেখার মত স্বপ্নেই রয়ে যায়। তিনি মিনি কক্সবাজারের সৌন্দর্য রক্ষায় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে আশ্বাস দেন। এদিকে ভ্রমণ পিপাসিত এলাকা হিসাবে বিশেষ দিন এবং ছুটির দিনসহ প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটক ভীর জমায় এলাকাটিতে। যদি ভাঙ্গন বন্ধ না হয় এবছরই এলাকাটি নদী গর্ভে চলে যাওয়ার আশংকা করছে এলাকাবাসী। এবিষয়ে দোহার উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীর হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন দোহারে ১০ কিলোমিটার নদী শাসনের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে, ২১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে (৩.৫০) সাড়ে তিন কিলোমিটারের নয়াবাড়ি /নারিশা ইউনিয়নে নদী শাসনের কাজ চলছে বাকিটা প্রক্রিয়াগত। আমরা আশা করি বাকি ৭.৫০ কিলোমিটার কাজের বিল একনেকে দ্রুত অনুমোদন হয়ে আসলে বাকি কাজও শেষ হবে বলে আশা করি।

 

 

Save

Save

Save



Related posts

মন্তব্য করুন