দোহারে শিক্ষকের দায়িত্ব অবহেলায় শিক্ষার্থীদের অভিযোগ।

আবুল হাশেম ফকিরঃ

ঢাকা দোহার উপজেলার নয়াবাড়ি ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী বাহ্রা হাবিল উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের এমপি ভুক্ত সিনিয়র শিক্ষক মোঃ হারুন-উর-রশিদের বিরোদ্ধে দায়িত্ব অবহেলার অভিযোগ পাওয়া গিয়াছে।

দোহারে শিক্ষকের দায়িত্ব অবহেলায় শিক্ষার্থীদের অভিযোগ।

গোপন সুত্রের ভিত্তিতে 24khobor.com এর অনুসন্ধান টিম খবর পেয়ে মঙ্গলবার স্কুল চলাকালীন সময়ে সরজমিনে গিয়ে দেখতে পান তিনি স্কুলে উপস্থিত নেই। এব্যাপারে প্রধান শিক্ষকের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান হারুন মাষ্টার স্কুলে এসেছিলেন এবং স্বাক্ষর বহিতে স্বাক্ষর করে প্রথম পিরিউট ক্লাশ নিয়ে আমাকে না বলে চলে যান। তিনি মাঝে মাঝে এমনটি করে কিনা এমন প্রশ্নের জবাব কৌশলে এরিয়ে যান। ক্লাশ নেওয়ার রুটিন সমন্ধে সময়ক্ষন উল্ল্যেখ করে বলেন ৭ম শ্রেনীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ৮ম শ্রনীতে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি,১০ম শ্রেনীতে ব্যবসায়ী ও উদ্যোগ। অনুসন্ধান টিম প্রতিটি ক্লাশে গিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছে জানতে চাইলে সবাই একবাক্যে বলেন তিনি আসেননি। দশম শ্রেনীর কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, হারুন স্যার মাঝে মাঝেই ক্লাশ নিতে আসেন না। স্কুলে আসেন কিনা জানতে চাইলে সবাই বলেন মাঝে মাঝে স্কুলে দেখিনা। এবং নিয়মিত অামাদের ক্লাস নেন না। স্কুলের কয়েকজন শিক্ষক নাম প্রকাশে অনুইচ্ছুক তাহারা বলেন তিনি রাজনৈতিক ও এলাকার প্রভাব খাটিয়ে ছাত্রছাত্রীদের পাঠদান দায়িত্বভার পালন না করে চলছেন দীর্ঘদিন যাবত। আরো জানা যায় গত শনিবার নৈমিত্তিক ছুটি নিয়ে কুসুমহাটি ইউনিয়নের কার্তিকপুর গ্রামে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত একটি শালিসিতে বিঞ্জ বিচারক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন। খোজ নিয়ে জানা যায় তিনি একজন বিঞ্জ বিচারক হিসাবে বিভিন্ন এলাকায় স্কুলের শিক্ষকতার দায়িত্ব ফাকি দিয়ে ভাড়াটে হিসাবে যান। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উপজেলা শিক্ষা অফিসার বলেন, তার বিরুদ্ধে অারো অভিযোগ শুনেছি এ ব্যাপারে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয় নি। দিলে ঘটনা তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এব্যাপারে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান মোল্লার নিকট ফোনালাপে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি জানিনা আগামী বৃহস্পতিবার স্কুলে গিয়ে তদন্ত করে জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।



Related posts

মন্তব্য করুন