সর্বশেষ সংবাদ

গাজীপুরে ধর্ষণ চেষ্টাকালে যুবদল নেতার পুরুষাঙ্গ কর্তন

 

গাজীপুরের কালীগঞ্জে এক নারীকে (৪০) ধর্ষণ করতে গিয়ে পুরুষাঙ্গ হারিয়েছেন তিন সন্তানের জনক অলিউল্লাহ (৪৫) নামের স্থানীয় এক যুবদল নেতা। এ ঘটনায় ওই নারী মৌখিকভাবে থানার ওসিকে জানিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. আলম চাঁদ। পুরুষাঙ্গ হারানো ওই যুবদল নেতা উপজেলার বক্তারপুর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণগাঁও গ্রামের ময়েজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি ওই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

ওই নারী জানান, তার স্বামী স্থানীয়ভাবে মাছ ধরার কাজ করেন। স্বামী-স্ত্রী ও এক সন্তান নিয়ে অভাব অনটনের সংসার তাদের। তাই সংসারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে তিনি নিজেও একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে শ্রমিক হিসেবে কাজ করেন। কাজে আসা-যাওয়ার পথে অর্থের লোভ দেখিয়ে কুপ্রস্তাব এবং নানাভাবে হুমকি-দামকি দিত অলিউল্লাহ। গত প্রায় তিন মাস আগে কাজ শেষ করে রাতে বাড়ি ফেরার পথে তাকে টানা-হেচড়া করে পাশের জঙ্গলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে তার চিৎকারে আশপাশের মানুষ ছুটে আসলে সে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান- মেম্বারকেও অবগত করেছেন বলে জানান তিনি। কিন্তু এসব বিষয় তিনি অলির পরিবারকে জানালেও তারা আমলে না নিয়ে উল্টো তাকেই দোষারোপ করতো। তিনি আরও জানান, গত কয়েকদিন ধরে অসুস্থ হয়ে বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন। শুক্রবার রাতে ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন তিনি। আর স্বামীও বাড়িতে ছিলেন না। ওইদিন দিবাগত রাত দুইটার দিকে অলি তার ঘরের দরজা ধাক্কা দিয়ে খুলতে বলে। এসময় তিনি কৌশলে ব্লেড দিয়ে অলির পুরুষাঙ্গ কেটে দেন। পরে চিৎকারে অলির চাচা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে ঢাকার একটি হাসপাতালে নিয়ে যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নুরুল ইসলাম জানান, অলিউল্লাহ কোনো কাজ-কর্ম করতো না। শুধু ঘুরে বেড়াত আর জুয়া খেলত। এর আগে আসা-যাওয়ার পথে ওই নারীর সঙ্গে রাস্তায় অশালীন আচরণ করতো। বিষয়গুলো তিনি আমাদেরকে এবং তার পরিবারকে অবগত করেছে। কিন্তু পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় হয়তো ওই নারী নিজেই এই ব্যবস্থা নিয়েছেন। কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলম চাঁদ জানান, এ ব্যাপারে থানায় এসে ওই নারী মৌখিকভাবে জানিয়ে গেছেন। তবে লিখিত কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে ঘটনা তদন্ত করে দেখা হবে।

সুত্র ঃ আমাদের সময়



Related posts

মন্তব্য করুন