সর্বশেষ সংবাদ

কেরাণীগঞ্জে ব্যবসায়ী হত্যায় ছিনতাইকারীর ফাঁসির রায়


ঢাকার কেরাণীগঞ্জে পাঁচ বছর আগে ব্যবসায়ী নবাব আলীকে হত্যার দায়ে এক ছিনতাইকারীর মৃত্যুদণ্ডের রায় দিয়েছে আদালত। ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ এসএম কুদ্দুস জামান সোমবার রায় ঘোষণা করে মামলার আরও দুই আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

কেরাণীগঞ্জে ব্যবসায়ী হত্যায় ছিনতাইকারীর ফাঁসির রায়

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মো. বাচ্চু মুন্সীগঞ্জ জেলার সিরাজদিখান উপজেলার আব্দুল হালিমের ছেলে।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত দুইজন হলেন- ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের পারগেন্ডারিয়া এলাকার তোতা মিয়ার ছেলে মো. সজল ও কুমিল্লার দেবীদ্বারের রাজা মোহার এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে মো. সুমন ওরফে মেসি।

সংশ্লিষ্ট আদালতের পেশকার নারায়ণ চন্দ্র সাহা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, রায় ঘোষণার সময় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বাচ্চুকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। অপর দুই আসামি হাই কোর্ট থেকে জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তদের প্রত্যেককে দুই হাজার টাকা করে জরিমানা করেছেন বিচারক। জরিমানার টাকা দিতে ব্যর্থ হলে আরও একমাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড ভোগ করতে তাদের।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, কেরাণীগঞ্জের গুলজারবাগ এলাকায় থেকে ফেরী করে চশমা বিক্রি করতেন নবাব আলী। বরগুনার আমতলী থানার ছোনাউটা গ্রামের তার বাড়ি।

২০১২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি গ্রামের বাড়ি গিয়ে ৩ ফেব্রুয়ারি ভোররাতে লঞ্চে করে ঢাকা ফেরেন নবাব। সদরঘাটে নেমে বাসায় কেরাণীগঞ্জের ফেরার পথে কে বা কারা জিনজিরার বটতলা এলাকায় বেরিবাঁধের ওপর তাকে হত্যা করে।

ওই দিনই নবাবের ভগ্নিপতি মো. নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে কেরাণীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। এরপর বাচ্চুকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বাচ্চু আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দেন।

ছিনতাই করতে বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ী নবাব আলীকে হত্যা কথার স্বীকার করে জবানবন্দিতে বাচ্চু বলেন, আসামি সজল ও সুমনসহ তারা তিনজন ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা করে চকবাজার থেকে একটি চাকু কিনেছিলেন। রাতে ছিনতাই করার জন্য জিনজিরার বটতলায় যান তারা।

ছিনতাইয়ের সময় নবাব আলী বাধা দিলে বাচ্চু ছুরি দিয়ে তাকে আঘাত করে। এতে তিনি মারা যান। নবাব আলীর ব্যবহার করা মোবাইলটি আসামি সজলের কাছ থেকে থেকে উদ্ধার করে পুলিশ।

মামলায় ১২ জন সাক্ষীর মধ্যে ১১ জনের সাক্ষ্য নিয়ে রায় ঘোষণা করেন বিচারক।

বিডিনিউজ



Related posts

মন্তব্য করুন