সর্বশেষ সংবাদ

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে পাঠদান: অাতংকে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা

 

টঙ্গীবাড়ি উপজেলার স্বর্ণগ্রাম রাধানাথ উচ্চ বিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে পাঠদান চলছে। সরজমিন গিয়ে দেখা গেছে, ১১৯ বছরের পুরনো জরাজীর্ণ ভবনটির ছাদের পলেস্তারা খসে পড়ছে। প্রায় প্রতিদিন শিক্ষার্থীদের মাথায় কিংবা শরীরে ভেঙে পরছে ছাদের পলেস্তারা। জানা যায়, ১৮৯৮ সালে এই বিদ্যালয়টি শ্রী গুরু প্রসাদ সেন প্রতিষ্ঠা করেন।শ্রী গুরু প্রসাদ সেন তার মামা ও মামী উভয়ের স্মৃতি রক্ষার্থে স্বর্ণগ্রাম রাধানাথ উচ্চ বিদ্যালয়টি নামকরণ করা হয়। বর্তমানে কামারখাড়া ইউনিয়নে স্বর্ণগ্রাম আর.এন উচ্চ বিদ্যালয় নামে পরিচিত । এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১১শ শিক্ষার্থী রয়েছে।জে.এস.সি ও এস.এস.সি পরিক্ষায় সুনাম সহ ক্রীড়াঙ্গনে রেখেছে বিশেষ ভূমিকা জাতীয় পর্যায়ে দৌর প্রতিযোগিতায় পেয়েছে স্বর্নপদক সমান তালে চলছে স্কাউটিং।

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা বলেন, ঐতিহ্যবাহী ও পুরানো এই বিদ্যালয়ের লেখাপড়া মান উন্নত হলেও উন্নতি হয়নি এই বিদ্যালয়টি। তাই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে দুর্ঘটনার অাশংকা নিয়ে ক্লাস করতে হচ্ছে আমাদের।

প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল বাসেদ জানান, আষাঢ়-শ্রাবণ মাসের বর্ষা মৌসুমে ছাত্রছাত্রীরা আতঙ্কে থাকে। ওই সময় ভবন থেকে পানি চুইয়ে পড়ে। পুরনো জরাজীর্ণ ভবন ভিজা থাকলে দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনাও বেশি, যে কারণে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি তখন কমে যায়।জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের হল এর মত কোনো নতুন ট্রাজেডির যেনো সৃষ্টি না হয়। তাই খুব শীঘ্রহি নতুন ভবন নির্মাণ করার আশাবাদী।

টঙ্গীবাড়ি উপজেলা শিক্ষা অফিসার খালেদা পারভিন জানান, স্বর্ণগ্রাম রাধানাথ উচ্চ বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনের পিছনে একটি পুকুর ভরাট করা হয়েছে খুব শীঘ্রহি নতুন ভবন করার চেস্টা চলছে।



Related posts

মন্তব্য করুন