সর্বশেষ সংবাদ

দোহারে টেস্ট পরীক্ষায় ফেল করায় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা

নিজস্ব সংবাদদাতা

গতকাল ৬ নবেম্বর রোজ সোমবার কার্তিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের শ্রাবন্তী (১৭) নামক এক শিক্ষার্থীর ফাঁশ দিয়ে আত্মহত্যার খবর পাওয়া গিয়াছে। পরিার ও প্রতিবেশী সুত্রে ঘটনার বিবরণে জানা যায়,গতকাল টেস্ট পরীক্ষার ফলাফল জানায়।

দোহারে টেস্টপরিক্ষায় পাশ করতে না পারায় এক স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা

১৮৭ জন শিক্ষার্থী ভালো ভাবে পরীক্ষায় দিয়ে পাশ করেছে , ৬৭ জন পাশ করতে পারেনি এমন একটি মুখিক তালিকা সবার মাঝে জানাজানি হয়। বান্ধবীদের কাছ থেকে শ্রাবন্তী জানতে পারে তালিকা বোর্ডে টাঙ্গিয়ে দেওয়া ১৮৭ জনের নামের তালিকায় তার নাম নাই। এমন খবর পেয়ে মানুষিকভাবে ভেঙ্গে পরে শ্রাবন্তী। গতবারও টেস্টপরীক্ষায় ফেল করেছিল তাই নিজের লজ্জা আড়াল না করতে পেরে সন্ধ্যা ৬.২০ টার দিকে শ্রাবন্তী তার মাকে কৌশলে বান্ধবীর বাড়ী রেজাল্ট জানার জন্য পাঠায়। মা মনুয়ারা আক্তার ফিরে এসে ঘড়ের দরজা বন্ধ দেখে ডাকাডাকি করেন এবং জানালা দিয়ে দেখতে পেয়ে মা চিৎকার দিলে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসেন এবং গলায় কাপড় পেচাইয়া ফাঁশিতে ঝুলানো শ্রাবন্তীকে দরজা ভেঙ্গে বের করেন। পরে দোহার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহাকে মৃত্যু বলে ঘোষনা করেন। এখবর জানাজানি হলে এলাকায় ও নিজ স্কুলের শিক্ষার্থীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। শ্রাবন্তী কুসুমহাটী ইউনিয়নের পুস্পখালী গ্রামের মোঃ হাশেম আলীর মেয়ে। খুব ভালো পরিবার মা,বাবা, একভাইকে নিয়ে খুব হাঁসি খুসির পরিবার ছিলো। সবাই শ্রাবন্তীকে অনেক আদর এবং ভালবাসতো। শ্রাবন্তী কার্তিকপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্রী ছিলো।



Related posts

মন্তব্য করুন