কচি’দের ব্যবহারে খালেদা হতাশ

chatrodol-450x253

ছাত্রদলের সদ্য ঘোষিত কমিটি নিয়ে তান্ডব চলছেই। পদবঞ্চিত নেতাদের গুলশানস্থ বেগম জিয়ার বিশেষ কার্যালয় থেকে শুরু করে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় অফিসের সামনেও প্রকাশ্য অবস্থান নিতে দেখা গেছে। এদিকে নতুন কমিটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এরা দলের কেও নয়। অন্যদিকে পদ বঞ্চিতরা বলছে, সরকারের সঙ্গে যোগ সাজস করে বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদ উদ্দীন চৌধুরী এনি ও প্রভাবশালী ছাত্র নেতা সালাউদ্দীন টুকু এই কমিটি দিয়েছেন।দু’পক্ষই সরকারের এজেন্ট এজেন্ট বলে চিৎকার করে একে অপরের বিষেদগার করছেন। এক বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছে, এতে ভীষণ বিব্রত দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। কারণ, এই কমিটি প্রদান করতে তিনি নিজেই সাম্প্রতিক সময়ে চার চারটি আনুষ্ঠানিক বৈঠক করেছিলেন।

এদিকে  ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড.পিয়াস করিমের মৃত্যুতে বিএনপি শুক্রবার শোক পালনের কর্মসূচি হাতে নিলেও তাদের ছাত্র সংগঠন ছাত্রদলের পদবঞ্চিত নেতারা নতুন ঘোষিত কমিটি বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

কমিটি বাতিলের দাবিতে শুক্রবার সকাল থেকেই নয়াপল্টনে বিএনপির রাজনৈতিক কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে থাকেন নেতারা।নয়াপল্টনের বিএনপি কার্যালয় পদবঞ্চিতরা দখলে নিয়ে নেয়।কমিটিতে যারা কাঙ্ক্ষিত পদ পাননি তারাও এই বিক্ষোভে অংশ নেন। ছাত্রদল নেতা আবু সায়ীদ, জাবেদ হাসান স্বাধীন, আনিসুর রহমান তালুকদার খোকনের নেতৃত্বে ছাত্রনেতারা এ মিছিলে অংশ নেন।

এদিকে শোকের কর্মসূচি উপলক্ষে নেতাকর্মীদের বুকে কালো ব্যাজ ধারণ করার থাকলেও তাদের বুকে কোনো কালো ব্যাজ দেখা যায়নি। তবে পল্টনে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন চলছে।

অন্যদিকে নতুন কমিটিকে স্বাগত জানিয়েও মিছিল করেছে ছাত্রদলের নতুন কমিটির সমর্থক নেতাকর্মীরা। দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি মিছিলের কারণে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নয়াপল্টন। এমতাবস্থায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের বাড়তি সতর্কতায় দেখা গেছে। শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে নতুন কমিটির সভাপতি রাজিব আহসান তার অনুসারিদের নিয়ে কার্যালয়ের সামনে দিয়ে মহড়া দিয়ে যান।

অপরদিকে শুক্রবার সকালে বিক্ষোভ মিছিল শেষে সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি আবু সাঈদ বলেন, ছাত্রদল দীর্ঘদিন ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে রাজনীতি করতে পারে না। নেত্রী (খালেদা জিয়া) সকলের সঙ্গে আলোচনা করে এ অচলাবস্থা দূর করতে একটি কমিটি দিতে চেয়েছিলেন। কিন্তু সরকারের দালাল এজেন্টরা অর্থের বিনিময়ে নিজেদের পকেট কমিটি দিয়েছে। এ কমিটি আমরা মানি না, মানবো না।

এক পরিসংখ্যানে নতুন কমিটির পদে থাকা নেতৃত্বে বিবাহিত, একাধিক মামলার দন্ডপ্রাপ্ত আসামী, অছাত্র হিসাবে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও প্রমাণ মিলছে। এই প্রসঙ্গে এক বেসরকারী টিভি চ্যানেলে সাংবাদিক নাঈমুল ইসলাম খান বলেন, বিয়ে করার শর্তাবলীতে পুরুষের ক্ষেত্রে ১৮ বছর থাকায় এটা কোনো বড় বিষয় হতে পারে না। তবে মেধা বা যোগ্যতা অবশ্যই থাকা দরকার।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের সাবেক ছাত্রনেতা সুভাষ সিংহ রায় বলেন, ছাত্রদলে কখনই মেধাভিত্তিক রাজনীতির মূল্যায়ন অতীতে হয় নাই, এখনো হয়েছে বলে অনুমিত হয় না।

অপর এক দায়িত্বশীল পর্যায়ের সূত্র জননেতা ডট কম কে নিশ্চিত করে, বিএনপি দলীয় চেয়ারপার্সন এই কমিটি ঘোষণা করা নিয়ে এবং তার পরের পরিস্থিতি নিয়ে বেশ উদ্বিগ্ন।  দলের জ্যেষ্ঠ রাজনীতিকদের সাম্প্রতিক বিশ্বাসঘাতকতার মতো এখানেও কিছু ঘটছে বলে তিনি রাজনীতিতে বেশ হতাশ হয়ে পড়েছেন।



Related posts

মন্তব্য করুন