সর্বশেষ সংবাদ

মিরপুরের ব্যবসায়ী খুন, স্ত্রীর পরিকল্পনায়

indexasadমিরপুরের ঝুট ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিন হত্যা মামলার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আসামি তানভীর আহমেদ।

বুধবার মিরপুর থানার এসআই ইমানুর রহমান মামলার তদন্তকারী কমকর্তা আসামিদের ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির করে তানভীর আহমেদের স্বীকারোক্তিমূলক রেকর্ড ও অপর তিন আসামিকে সাত দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন।

তানভীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে বলেছে, “এক বছর আগে গিয়াস উদ্দিনের বাসার সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় লিমার সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর দুজনের মধ্যে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। চলতি মাসের ১৫ অক্টোবর গিয়াসকে ডির্ভোস না দিয়েই লিমা বিয়ে করেন তানভীরকে। বিয়ের পর দুজনের একসঙ্গে থাকার বাধা দূর করতে লিমার পরিকল্পনা মতে তিন বন্ধু মিলে খুন করে গিয়াসকে।”

ম্যাজিস্ট্রেট মো. তসরুজ্জামান  তানভীরের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। অপর তিন আসামির তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন ম্যাজিস্ট্রেট মো. মারুফ হোসেন।

অপর তিন আসামি নিহতের স্ত্রী লাভলী ইয়াসমিন লিমা, আকিবুল ইসলাম জিসান ও সাদমান ইসলামের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

আসামি তানভীর বিএল কলেজের প্রথম বর্ষ, সাদমান ইসলাম ঢাকা কর্মাস কলেজের প্রথম বর্ষ এবং আকিবুল ইসলাম ওরফে জিসান সরকারি বিজ্ঞান কলেজের একই বর্ষের ছাত্র।

মঙ্গলবার দিনভর মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

১৯ অক্টোবর রাতে মিরপুর-১০ নম্বর সেকশনের ১৫ নম্বর লেনের সি-ব্লকের ১১ নম্বর বাসার ছয় তলা ভবনের চার তলায় নিজ বাসায় গিয়াস উদ্দিন  খুন হন। এ ঘটনায় নিহতের ভাইয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে নিহতের স্ত্রী লাভলী ইয়াসমিন লিমাকে পুলিশ আটক করে পুলিশ।



Related posts

মন্তব্য করুন