সর্বশেষ সংবাদ

ঢাবি সহ বিশ্বের যেকোন ভার্সিটির জাল সার্টিফিকেটঃ আটক ২

ঢাবি সহ বিশ্বের যেকোন ভার্সিটির জাল সার্টিফিকেটঃ আটক ২

রাজধানীর নীলক্ষেত বাকুশাহ মার্কেটের মায়ের দোয়া উদয়ন প্রেন্টার্স থেকে ঢাকা বিশ‌্ববিদ্যালয়সহ বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল সার্টিফিকেটসহ ২ দোকান মালিককে আটক করেছে ঢাকা বিশ‌্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. এম আমজাদ আলীর নেতৃত্বে নিউ মার্কেট থানা পুলিশ তাদের আটক করে। বর্তমানে তারা হাজতে রয়েছে।

আটককৃতরা হলেন- মায়ের দোয়া উদয়ন প্রেন্টার্স এর মালিক আজগর ভূঁইয়া (২৬) ও মো. আবদুস সামাদ (৩২)। এদের মধ্যে আজগর ভূঁইয়া নিজেকে সেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী বলে দাবি করেন।

এসময় তাদের কাছ থেকে সার্টিফিকেট জাল করার বিভিন্ন সরঞ্জামাদি জব্দ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিম। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে ঢাকা বিশ‌্ববিদ্যালয়ের নামে তৈরীকৃত জাল সার্টিফিকেট, মার্কসীট, আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির সার্টিফিকেট ও মার্কসীট, ইনডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটির মার্কসীট, ভারতের ব্যাঙ্গালোর বিশ‌্ববিদ্যালয়সহ আরো বিদেশী কয়েকটি বিশ‌্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট জাল করণের সরঞ্জামাদি এবং দেশের বিভিন্ন কলেজ, বিশ‌্ববিদ্যালয়, সরকারী সার্টিফিকেট, নকল করার ১৪টি ছোট ও ৬৩টি বড় প্লেটসহ বেশ কিছু সরঞ্জামাদি।

এসময় পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলে, তাদের এমন কাজে সহযোগীতা করে আরো কয়েকটি দোকানসহ ১৪ জন লোক। এছাড়াও বাকুশাহ মার্কেটের ১নং গলির ফিরোজের দোকানসহ কয়েকটি দোকানও এমন আসাধু কাজে জড়িত বলেও তারা স্বীকার করে।

জব্দ করা জাল সার্টিফিকেটে দেখা যায় এটি হুবহু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেটের ন্যায় তৈরী। এর মধ্যে ইউনিভার্সিটির সার্টিফিকেটের ভেতরে জলছাপে দেয়া ছাগলের ছবিও এতে রয়েছে। এমনকি যে কাগজগুলো এখানে ব্যাবহার করা হয়েছে তাও ইউনিভার্সিটিতে ব্যাবহার করা মূল কাগজ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ও পুলিশের ধারণা এই কাগজগুলো বিশ‌্ববিদ্যালয়ের কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মাধ্যমে তারা নিয়ে থাকে। নতুবা এমন কাগজ মার্কেটে পাওয়া অসম্ভব।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. এম আমজাদ আলী জানান, তাদের বিরুদ্ধে বিশ^বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে নিউ মার্কেট থানায় মামলা করা হবে। এবং এর সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেউ জড়িত কিনা তাও খতিয়ে দেখ হচ্ছে। যদি থাকে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

samsung-galaxy-a5-vs2



Related posts

মন্তব্য করুন