সর্বশেষ সংবাদ

নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাই নিয়ে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ

 প্রার্থী বাছাই নিয়ে অর্থ বাণিজ্যের অভিযোগ : নবাবগঞ্জে আওয়ামী লীগের
চতুর্থ ধাপে ইউপি নির্বাচনে ঢাকার নবাবগঞ্জের ১৪টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রাথমিকভাবে বাছাই প্রায় শেষ করা হয়েছে। তৃণমূল নেতাকর্মীরা প্রার্থী প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত করা হলেও কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডের অপেক্ষায় প্রার্থী ও নেতাকর্মীরা। কিন্তু এসব প্রার্থী মনোনয়নে কোথাও কোথাও অর্থবাণিজ্য হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, তৃণমূল সমর্থনের পরিপ্রেক্ষিতে কলাকোপা ইউনিয়নে মো. ইব্রাহীম খলিল, আগলায় সুরুজ খান, বক্সনগরে আবদুল ওয়াদুদ মিয়া, যন্ত্রাইল নন্দলাল সিং, বান্দুরায় নাসির উদ্দিন, বারুয়াখালী আরিফুর রহমান সিকদার, চুড়াইনে আবদুল জলিল, গালিমপুরে লুৎফর বেপারী, বাহ্রায় মোশারফ হোসেন, কৈলাইলে পান্নু মাদবর, শোল্লায় দেওয়ান তুহিনুর রহমান, নয়নশ্রী পলাশ চৌধুরী, শিকারীপাড়ায় আলিমুর রহমান খান পিয়ারা, জয়কৃষ্ণপুর আবুল হোসেনকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন করা হয়েছে। তবে এসব মনোনয়নের বিষয়ে কিছু প্রার্থীকে নিয়ে তৃণমূলের একাংশের নেতাকর্মীদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা রয়েছে। তাদের অভিযোগ প্রার্থী মনোনয়নে মোটা অংকের বাণিজ্য করা হয়েছে। তৃণমূলের দোহাই দিয়ে কিছু নেতা মনোনয়ন প্রত্যাশীদের পরিচিতি ও জনপ্রিয়তা যাচাই না করে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ডে নাম প্রেরণ করেছেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবদুল জব্বার ভূঁইয়া বলেন, দলের ত্যাগী নেতাদের মূল্যায়ন করা হয়নি। যাদের টাকা-পয়সা বেশি তাদেরই মনোনয়নের জন্য বাছাই করা হয়েছে। এ ক্ষেত্রে চেনা-জানার প্রয়োজন হয়নি। এতে দলের গণতন্ত্র ব্যাহত হয়েছে। ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের এক সাবেক নেতা বলেন, শোল্লা, বাহ্রা, কৈলাইল, যন্ত্রাইল, শিকারীপাড়া, বান্দুরা, চুড়াইন, গালিমপুর ও জয়কৃষ্ণপুর ইউনিয়নে ত্যাগী ও মাঠের নেতাদের মনোনয়ন না দিয়ে লোক দেখানো তৃণমূল ভোট করে বাণিজ্যের মাধ্যমে প্রার্র্থী বাছাই করা হয়েছে। এসব মনোনয়নে পক্ষ-বিপক্ষ ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগও উঠেছে। তাদের অভিযোগ, জেলা ও উপজেলার শীর্ষ নেতারা এসব অনিয়ম ও বাণিজ্যের সঙ্গে জড়িত।
নবাবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন আহমেদ ঝিলু বলেন, এমন কিছু কথা আমিও শুনেছি। তবে কে বা কারা এসব করছে তার কোনো প্রমাণ পাইনি। সুনির্দিষ্ট তথ্য পেলে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।
Asaduzzaman


Related posts

মন্তব্য করুন